dannews24.com | logo

৭ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২১শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বগুড়ার শেরপুরে মহাসড়কে দাঁড়ানো ট্রাকে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কা, ট্রাকের চালক ও তাঁর সহকারি নিহত

প্রকাশিত : নভেম্বর ০৬, ২০২০, ১৮:১৮

বগুড়ার শেরপুরে মহাসড়কে দাঁড়ানো ট্রাকে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কা, ট্রাকের চালক ও তাঁর সহকারি নিহত

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধিঃবগুড়ার শেরপুরে মহাসড়কে দাঁড়ানো ট্রাকে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় ট্রাকের চালক ও তাঁর সহকারি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও দুই ট্রাক চালক গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদেরকে প্রথমে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ও পরে বগুড়ায় শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শুক্রবার (০৬নভেম্বর) বিকেলে উপজেলার ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের মির্জাপুর আমবাগান এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বাগড়া কলোনী গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে ট্রাক চালক মো. আবু বকর সিদ্দিক (৩০) ও তার সহকারি একই গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে মো. আবু সাঈদ (২৮)। হাইওয়ে পুলিশের শেরপুর দশমাইল ক্যাম্পের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) আশরাফ আলী এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, মহাসড়ক সম্প্রসারণ কাজে নিয়োজিত দুইটি ট্রাক উক্ত স্থানে দাঁড়ানো ছিল।

এসময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা রংপুরগামী রেজভি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস দাঁড়ানো ট্রাকগুলোর পেছনে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে একটি ট্রাকের চালক ও তাঁর সহকারি নিহত হন। আর আরেক ট্রাকের চালক মো. জাকির হোসেন ও মো. সৈকত মিয়া আহত হন। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে যান। কিন্তু সেখানে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাৎক্ষণিক তাদের বগুড়ায় শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এছাড়া দুর্ঘটনা কবলিত বাস-ট্রাক জব্দ করা গেলেও বাসের চালক-হেলপার পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি। এ ঘটনায় মামলা নেয়া হবে বলে জানান হাইওয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা।






অফিস: হোল্ডিং#৩৫৯,রোড# ৮/২ মধ‍্য সরদারপাড়া, দুপচাঁচিয়া, বগুড়া।

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: মোছাব্বর হাসান মুসা। 01711366298/01812550877 mushanews2011@gmail.com

নির্বাহী সম্পাদক
ইমরানুল হাসান (বি এ অনার্স) ম‍্যানেজমেন্ট।

 

বার্তা সম্পাদক: মো:জাকারিয়া হাসান। 01796032336

মহিলা সম্পাদিকা: মোনিকা আক্তার মালা। ( বিএ অর্নাস) রাষ্ট্রবিজ্ঞান।