dannews24.com | logo

৭ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২১শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বগুড়ার শেরপুরে লক্ষীপূজা মন্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুর করে পালানোর সময় আ.লীগ নেতার ছেলে আটক

প্রকাশিত : অক্টোবর ৩১, ২০২০, ২০:৩৪

বগুড়ার শেরপুরে লক্ষীপূজা মন্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুর করে পালানোর সময় আ.লীগ নেতার ছেলে আটক

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি:বগুড়ার শেরপুরে লক্ষীপূজার মন্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুর করে পালানোর সময় আওয়ামীলীগ নেতার ছেলেকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয় জনতা। তার নাম মো. আমিনুল ইসলাম (৩২)। তিনি উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের বিশা সরদারপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মতিউর রহমানের ছেলে। গত শুক্রবার (৩০অক্টোবর) দুপুরের দিকে বিশা সরদারপাড়া মরাদীঘি লক্ষীপূজা মন্ডপে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, নামাজের সময় পূজা মন্ডপে মাইক বাজানোর অজুহাত তুলে আ.লীগ নেতার ছেলে আমিনুল মোটরসাইকেল যোগে ওই পূজা মন্ডপে যান। এমনকি পূজা মন্ডপে ঢুকে পূজার সরঞ্জামসহ প্রতিমা ভাঙচুর করে। পাশাপাশি ডেকোরেশনের লাইটিং সিস্টেম ভেঙে ফেলেন। পরে আশপাশের ও মন্ডপে পরিচালনা কমিটির লোকজন তাকে আটক করে পুলিশে দেয়। ঘটনাটি সম্পর্কে জানতে চাইলে বিশা মরাদীঘি পূজা মন্ডপের সভাপতি সাধন সিং বলেন, মোটরসাইকেল নিয়ে অতর্কিতভাবে পূজা মন্ডপে এসে কোন কিছু না বলে আমাদের ওপর চড়াও হয়।

পাশাপাশি অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এমনকি লক্ষীপূজার প্রতিমার ওপর মোটরসাইকেল তুলে দেয়। এতে করে মূর্তির হাতির ডান পা ভেঙে যায়। এছাড়া ডেকোরেশনের আলোকসজ্জার দুইটি লাইট ভাঙচুর করে। এসময় আশাপাশের এবং পূজা মন্ডপের লোকজন তাকে আটক করাসহ পুলিশের নিকট সোপর্দ করেন বলে জানান ম-প পরিচালনা কমিটির এই নেতা। এদিকে পূজা ম-পে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় আটক হওয়া আটক হওয়া ওই যুবক প্রভাবশালী পরিবারের সন্তান হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এমনকি ঘটনার রাতেই দেন-দরবার ও আপোষ-রফার মাধ্যমে থানা থেকেই তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে জানতে শেরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, লক্ষীপূজার প্রতিমা ভাঙচুরের খবর পেয়েই পুলিশ সেখানে যায় এবং আমিনুল ইসলাম নামের ওই যুবককে আটক করে থানায় আনে। কিন্তু পূজা মন্ডপে পরিচালনা কমিটির লোকজন মামলা করতে অস্বীকার করেন। পাশাপাশি ঘটনাটি ভুল-ভুলবোঝাবুঝির কারণে সৃষ্টি হয়েছে বলে জানান। তাই মন্দির কমিটির লোকজনের জিম্মায় আটক ব্যক্তিকে ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।






অফিস: হোল্ডিং#৩৫৯,রোড# ৮/২ মধ‍্য সরদারপাড়া, দুপচাঁচিয়া, বগুড়া।

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: মোছাব্বর হাসান মুসা। 01711366298/01812550877 mushanews2011@gmail.com

নির্বাহী সম্পাদক
ইমরানুল হাসান (বি এ অনার্স) ম‍্যানেজমেন্ট।

 

বার্তা সম্পাদক: মো:জাকারিয়া হাসান। 01796032336

মহিলা সম্পাদিকা: মোনিকা আক্তার মালা। ( বিএ অর্নাস) রাষ্ট্রবিজ্ঞান।