dannews24.com | logo

১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৫শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বগুড়ার শেরপুরে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, গ্রেফতার দুই

প্রকাশিত : অক্টোবর ২১, ২০২০, ১৬:১৬

বগুড়ার শেরপুরে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ, গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, গ্রেফতার দুই

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার শেরপুরে সপ্তমশ্রেণীর ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণ করা হয়েছে। পরে ওই ধর্ষক ও তার সহযোগিকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। গত মঙ্গলবার ২০অক্টোবর দিনগত রাতে পৌরশহরের রেজিষ্ট্রি অফিস এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। তারা হলেন-উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের মো. বকুল হোসেনের ছেলে ধর্ষক মো. মামুন প্রামাণিক (২৪) ও তার সহযোগি একই গ্রামের হৃদয় হাসান ওরফে রাব্বী (১৯)।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর মা মোছা. আয়েশা বেগম বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ছোনকা বাজার এলাকায় এক গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন করা হয়েছে। কু-প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় দিনের বেলায় ওই নারীকে নির্যাতন করেন করেন এক মাদ্রাসা শিক্ষক। তার মো. রবিউল ইসলাম (৩০)। তিনি সুঘাট ইউনিয়নের দড়িহাসড়া গ্রামের মোসলেম উদ্দীনের ছেলে এবং স্থানীয় বেলগাছী দাখিল মাদ্রাসার সহকারি শিক্ষক (কৃষি)। গতকাল বুধবার (২১অক্টোবর) ভুক্তভোগী ওই নারী বাদি হয়ে গতকাল বুধবার (২১অক্টোবর) সকালে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

থানায় দায়ের করা মামলা ও অভিযোগ থেকে জানা যায়, উপজেলার খানপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের স্কুলপড়–য়া মেয়েকে বেশকিছুদিন ধরেই বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে উত্যক্ত করে আসছিল বখাটে মামুন প্রামাণিক। এমনকি একাধিকবার এই স্কুলছাত্রীকে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে ব্যর্থ হন। একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১৯অক্টোবর সন্ধ্যার দিকে বাড়ির সামনে থেকে ওই স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে যায় বখাটে মামুন ও তার সহযোগীরা। এরপর বগুড়া শহরের একটি বাসায় আটকে রেখে ওইরাতেই বখাটে মামুন প্রামাণিক এই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করেন। পরদিন ২০অক্টোবর সন্ধ্যার দিকে শেরপুর শহরের রেজিষ্ট্রি অফিস এলাকায় অবস্থান নেন অপহরণকারীরা।

গোপনে এই সংবাদ পেয়ে ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর স্বজন ও স্থানীয় এলাকাবাসী তাদের আটক করে থানায় সংবাদ দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ধর্ষক মামুন ও তার সহযোগীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। অপরদিকে উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ইটালী গ্রামের মো. মিলন ইসলামের স্ত্রীকে প্রায় এক বছর ধরে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল মাদ্রাসা শিক্ষক রবিউল ইসলাম। কিন্তু এতে রাজী না হয়ে মাদ্রাসা শিক্ষকের এহেন কর্মকা-ের তীব্র প্রতিবাদ জানান ওই গৃহবধূ। এরইজেরধরে গত ২০অক্টোবর বিকেলের দিকে এই গৃহবধূ স্থানীয় ছোনকা বাজার এলাকায় গেলে ঝাপটে ধরেন শিক্ষক রবিউল ইসলাম। পাশাপাশি তাকে দোকানঘরের মধ্যে নিয়ে যাওয়ার জন্য চেষ্টা চালানো হয়। এমনকি টানা-হেঁচড়া করে তার শরীরের কাপড় খুলে বিবস্ত্র করেন শিক্ষক রবিউল। একপর্যায়ে ঘটনার প্রতিবাদ জানান এবং চিৎকার শুরু করেন। পরে বাজারের লোকজন এগিয়ে এলে কৌশলে সটকে পড়েন ওই মাদ্রাসা শিক্ষক। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে অভিযুক্ত শিক্ষক রবিউল ইসলাম বলেন, এসব ষড়যন্ত্র। তাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতেই এই মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

এসব ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) এসএম আবুল কালাম আজাদ বলেন, স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা নেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে অভিযুক্তদের মধ্যে দুইজনকে আটক করে গতকাল আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এছাড়া ওই গৃহবধূর অভিযোগটি তদন্তপূবর্ক আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।






অফিস: হোল্ডিং#৩৫৯,রোড# ৮/২ মধ‍্য সরদারপাড়া, দুপচাঁচিয়া, বগুড়া।

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: মোছাব্বর হাসান মুসা। 01711366298/01812550877 mushanews2011@gmail.com

নির্বাহী সম্পাদক
ইমরানুল হাসান (বি এ অনার্স) ম‍্যানেজমেন্ট।

 

বার্তা সম্পাদক: মো:জাকারিয়া হাসান। 01796032336

মহিলা সম্পাদিকা: মোনিকা আক্তার মালা। ( বিএ অর্নাস) রাষ্ট্রবিজ্ঞান।