dannews24.com | logo

৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দুপচাঁচিয়া উপজেলার চামরুল ইউনিয়নের প্রথাট্টি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে স্কুলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

প্রকাশিত : এপ্রিল ০৭, ২০২১, ১৩:২৪

দুপচাঁচিয়া উপজেলার চামরুল ইউনিয়নের প্রথাট্টি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির বিরুদ্ধে স্কুলের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

মোসাব্বর হাসান মুসা বগুড়া জেলা প্রতিনিধি:  দুপচাঁচিয়া উপজেলার চামরুল ইউনিয়নের প্রথাট্টি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল গোফফার ও উক্ত বিদ্যালয়ের সভাপতি জহুরুল ইসলামের বিরুদ্ধে স্কুলের অর্থ আত্মসাতের খবর পাওয়া গেছে।

ম্যানেজিং কমিটির ৪ অভিভাবক সদস্য এ অভিযোগ করে বলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইতিপূর্বে দুই জন শিক্ষক এবং একজন চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারী নিয়োগের সমুদয় অর্থ আত্মসাৎ করেছেন।

প্রধান শিক্ষক আব্দুল গোফফার তার একক ক্ষমতা বলে স্কুলের ওইসব নিয়োগের টাকাগুলি স্কুলের উন্নয়নে ব্যয় না করে তিনি নিজ হিসাব নম্বরে জমা করে তা আত্মসাত করেছেন।

অপরদিকে চামরুল ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির কথিত সভাপতি জহুরুল ইসলাম স্কুলের সভাপতি নির্বাচিত হয়। ঘরম গ্রামের একটি ছেলের নিকট থেকে নাইটগার্ডের / নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগের নামে প্রায় ৮ লক্ষ টাকা তিনি নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন।

নিয়োগ কমিটি তাকে  নিয়োগ দেওয়ার জন্য সুপারিশ করলেও প্রধান শিক্ষক ও সভাপতির রশি টানাটানির জন‍্য তাকে নিয়োগ না দিয়ে আবার ৫/৬ লক্ষ টাকা দাবি করেন।

উক্ত বিষয়ে স্কুলের প্রশাসনিক কার্যক্রম ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে। অভিভাবক সদস্য কমিটির সদস্য পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার ইচ্ছা পোষণ করেছেন। তারা তাদের মেয়েদের লেখাপড়ার কথা মাথায় রেখে প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিকে সমঝোতা করতে বলেছেন। ঐ স্কুলে সরেজমিনে গিয়ে এসব তথ‍্য স্কুলের অভিভাবক সদস‍্য রফিকুল ইসলাম নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে তাদের কাছ থেকে এই তথ্যগুলো জানা যায়। এ বিষয়ে। অভিভাবক ৪ জন সদস্যের মধ্যে লুৎফর, ফরিদ হেলেনা, ও রফিকুল জানান প্রধান শিক্ষক ইতিপূর্বে  ২ জন শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগের সমুদয় প্রায় ১৫ লক্ষ টাকা আত্মসাত করেছেন।

এবার সভাপতি জহুরুল ইসলাম নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগের প্রায় ৮ লক্ষ টাকা নিজে গ্রহণ করে তা নিজেই খরচ করেছেন। স্কুলের উন্নয়নে উক্ত টাকা জমা করেন নাই বা স্কুলের উন্নয়ন না করে সমুদয় টাকা  খরচ হয়ে গেছে বলে সভাপতি সাংবাদিকদের জানান। স্কুলের প্রধান শিক্ষক এর সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি মোবাইল ফোন ধরেন না।  এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মোতাহার হোসেন জানান লিখিত অভিযোগ পেলে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






অফিস: হোল্ডিং#৩৫৯,রোড# ৮/২ মধ‍্য সরদারপাড়া, দুপচাঁচিয়া, বগুড়া।

সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: মোছাব্বর হাসান মুসা। 01711366298/01812550877 mushanews2011@gmail.com

নির্বাহী সম্পাদক
ইমরানুল হাসান (বি এ অনার্স) ম‍্যানেজমেন্ট।

 

বার্তা সম্পাদক: মো:জাকারিয়া হাসান। 01796032336

মহিলা সম্পাদিকা: মোনিকা আক্তার মালা। ( বিএ অর্নাস) রাষ্ট্রবিজ্ঞান।