dannews24.com | logo

১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

ঠাকুরগাঁওয়ে আজ আরও ২৮ জন করোনা আক্রান্ত

প্রকাশিত : আগস্ট ০৭, ২০২০, ১৫:০৭

ঠাকুরগাঁওয়ে আজ আরও ২৮ জন করোনা আক্রান্ত

মোঃ আবুল হাসান  ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ে প্রতিদিন বেড়েই চলেছে করোনা রোগী। গতকাল ২৪ জন শনাক্তের হওয়ার পর আজ  আরও ২৮ জনের করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।  এ নিয়ে জেলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে ৮ জনে।

৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার রাতে সারে ১০টায় ঠাকুরগাঁও  জেলা সিভিল সার্জন ডা. মাহাফুজার রহমান সরকার ফেসবুকে স্টাটাস দিয়ে এই বিষয়টি জানিয়েছেন।

তিনি জানান, এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ,দিনাজপুর হতে প্রাপ্ত সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও জেলায় আজ নতুন ২৮ জন।

এর মধ্যে সদর উপজেলার ২০ জন, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলায় ৬ জন পীরগঞ্জ উপজেলায়-১ জন এবং রাণীশংকৈল উপজেলায় ১

তিনি আরও জানান, জেলায় এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬৫ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৮ জন। এছাড়াও ২৭৪ জন সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ী ফিরে গেছেন।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় করোনার মিছিল  দুইশত ছাড়িয়ে। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় যেন থামছেই না করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনের পরে দিন বেড়েই চলেছে করোনা মিছিল ।

বিশেষজ্ঞদের ধারণা স্বাস্থ্যবিধি ও করোনা সচেতনতা জনসাধারণের না থাকায় এর বেশি প্রভাব ফেলছে। সরকারি ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানার তদারকি করা হলেও জনসাধারণের মাঝে এর প্রভাব খুব কম সংখ্যক মানুষের মাঝে তা লক্ষ্য করা যায়।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলায় আরও ২০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে সদর উপজেলায় সর্বমোট করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ২১৪ জন ।

দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হতে প্রাপ্ত সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী ঠাকুরগাঁও জেলায় আজ নতুন ২৮ জন

বৃহস্পতিবার (২ আগস্ট) রাত সাড়ে দশটায় এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মাহফুজার রহমান সরকার।

তিনি জানান, জেলায় এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৬৫ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৮ জন। এছাড়াও ২৭৪ জন সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ী ফিরে গেছেন।

Facebook Comments

অফিস: হোল্ডিং#৩৫৯,রোড# ৮/২ মধ‍্য সরদারপাড়া, দুপচাঁচিয়া, বগুড়া।




সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: মোছাব্বর হাসান মুসা।

নির্বাহী সম্পাদক
ইমরানুল হাসান (বি এ অনার্স) ম‍্যানেজমেন্ট।

 

বার্তা সম্পাদক: মো:জাকারিয়া হাসান।

মহিলা সম্পাদিকা: মোনিকা আক্তার মালা।