dannews24.com | logo

১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

বালিয়াডাঙ্গীতে নিখোঁজের ২ দিন পর কিশোরীর লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত : নভেম্বর ২২, ২০২০, ২২:৫০

বালিয়াডাঙ্গীতে নিখোঁজের ২ দিন পর কিশোরীর লাশ উদ্ধার

মোঃ আবুল হাসান ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি :  ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে নিখোঁজ হওয়ার দুইদিন বাড়ীর পার্শ্বে নদী থেকে স্বপ্না দাস (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার সকাল ১১টায় বালিয়াডাঙ্গী থানা পুলিশ উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের পারদেশীপাড়া গ্রামের ৫’শ গজ দুরে তীরনই নদী থেকে ওই স্কুলছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করে।

সে ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার মধুপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী । তার বাড়ি এই উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের পরদেশী পাড়া গ্রামে । গত শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে খ্রিস্টান পরিবারের এ মেয়েটি বাড়ি থেকে উধাও হয় ।

উপজেলার ২নং চাড়োল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দীলিপ কুমার চ্যাটার্জী বলেন, গ্রামবাসীর মধ্যে কেউ কেউ বলছেন, মেয়েটি’ কে অদৃশ্য শক্তি (জ্বিন) বাড়ি থেকে নিয়ে গিয়ে নদীতে ডুবিয়ে রেখে মেরে ফেলেছে। তবে বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

স্বপ্নার মা’ আসন্তা দাস ও বাবা রবিন দাসের দাবি, তাকে প্রথমে অপহরণ করার পর হত্যা করে মরদেহ নদীতে ফেলে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের পাশাপাশি ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

স্বপ্নার দুলাভাই রাজকুমার দাস জানান, তার শ্যালিকা স্বপ্না দাস রান্নার জন্য মাকে সাহায্য করছিল। এর এক পর্যায়ে টয়লেটে যাওয়ার কথা বলে সে রান্নাঘর থেকে বের হয়। তবে এর পর সে আর ঘরে ফেরেনি। টয়লেটের সামনে তার পায়ের জুতা ও পানির পাত্রটি পড়েছিল। অনেক খোঁজ করেও তার সন্ধান মেলেনি। অবশেষে বাড়ির পাশে তিরনই নদী থেকে অক্ষত অবস্থায় তার মরদেহ পাওয়া যায়।

মধুপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ বলেন, ছাত্রী হিসেবে স্বপ্না ভালো ছিল। তার এভাবে মৃত্যু মেনে নেয়া যায় না। আমরা বিষয়টি তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুস সবুর বলেন, তদন্ত করার পর বলা সম্ভব হবে স্বপ্নার মৃত্যুর রহস্য।

অফিস: হোল্ডিং#৩৫৯,রোড# ৮/২ মধ‍্য সরদারপাড়া, দুপচাঁচিয়া, বগুড়া।




সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: মোছাব্বর হাসান মুসা।

নির্বাহী সম্পাদক
ইমরানুল হাসান (বি এ অনার্স) ম‍্যানেজমেন্ট।

 

বার্তা সম্পাদক: মো:জাকারিয়া হাসান।

মহিলা সম্পাদিকা: মোনিকা আক্তার মালা।